এটুআই কর্তৃক আয়োজিত অন লাইন স্পেশাল টিচারস্‌ ট্রেনিং (ব্যাচ -১) নিয়ে দু’টি কথা

মোহাঃ জহুরুল ইসলাম ৩১ মে,২০২০ ১৭৮ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৪.৮৩ ()

 

  বিগত তিন দিন বেলা সাড়ে তিনটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত এটুআই কর্তৃক আয়োজিত অন লাইন স্পেশাল টিচারস্‌ ট্রেনিং এ অংশগ্রহণ করে কিভাবে সময়টা অতিবাহিত হয়েছে তা ভাষায় ব্যক্ত করা আমার দ্বারা সম্ভব নয়। তারপরও একটুখনি অনুভূতি শেয়ার করার চেষ্টা করছি মাত্র। গত তিন দিন বেলা সাড়ে তিনটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত সাড়ে চার ঘন্টা করে সময় কেটেছে আমার দীর্ঘ ২২ বছর শিক্ষকতা জীবনের সবচেয়ে সেরা ও শ্রেষ্ঠতম সময়। ভবিষ্যতে এমন সুযোগ আর পাবো কিনা জানিনা, পেলে নিজেকে ভাগ্যমান মনে করবো। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি,  এটি শুধু অন লাইন স্পেশাল টিচারস্‌ ট্রেনিংই ছিল না। এটি ছিল সারা বাংলাদেশকে বদলে দেওয়ার একটি অন লাইন আয়োজন। আর এটুআই-ই হলো সেই বদলে দেওয়ার একটি গুরুত্বপূর্ণ ও অন্যতম প্লাটফরম। যে আয়োজনে অংশগ্রহণ করেছিলেন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় ৪১৭ জন শ্রদ্ধাভাজন শিক্ষক। শুধু তাই নয়, ইনারা শুধু শিক্ষকই নন, ইনারা হলেন এটুআই কর্তৃক পরীক্ষিত এক একজন সূর্য সৈনিক। যারা এটুআই এর সার্বিক সহযোগিতায়  গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অঙ্গীকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কারিগর হিসেবে নিরলস  কাজ করে চলেছেন। এখান থেকে সম্মানিত শিক্ষক মহোদয়রা যা পেয়েছেন তা যদি তাদের নিজ নিজ স্থান থেকে প্রয়োগ করতে পারেন তাহলে আমি বিশ্বাস করি সত্যিই বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় এক আমুল পরিবর্তন আসতেই পারে। আমি ব্যক্তিগতভাবে আশা করি এটুআই কর্তৃক আয়োজিত অন লাইন স্পেশাল টিচারস্‌ ট্রেনিং চলমান থাকবে। আসলে শিক্ষক মানেই শিক্ষক নয়, একজন শিক্ষক কিভাবে একজন সত্যিকারের শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ উপস্থাপক, একজন সুদক্ষ অভিনেতা হতে পারেন সম্মানিত ট্রেনার মুহাম্মদ ইয়াসির স্যার নিজেকে উজাড় করে দিয়ে কোন প্রকার বিরক্তিবোধ না নিয়ে তিন দিনের এই ট্রেনিং এর মাধ্যমে শিখানোর চেষ্টা করেছেন। জানিনা আমরা কতটুকু তা গ্রহণ করতে পেরেছি। তবে আগেই বলেছি এখান থেকে সম্মানিত শিক্ষক মহোদয়রা যা পেয়েছেন তা যদি তাদের নিজ নিজ স্থান থেকে প্রয়োগ করতে পারেন তাহলে বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় এক আমুল পরিবর্তন আসবেই আসবে। সম্মানিত ট্রেনার মুহাম্মদ ইয়াসির স্যার আমাদেরকে প্রাণবন্ত রেখে ফোনেটিকস্ ইংলিশ এর উপর একটি অসাধারণ কোর্স সম্পন্ন করানোর জন্য স্যারকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। স্পেশাল টিচারস্‌ ট্রেনিং এর আয়োজন করার জন্য এটুআই কর্তৃপক্ষকে বিশেষ করে মান্যবর অভিজৎ সাহা স্যার, রফিকুল ইসলাম সুজন স্যার, জান্নাতুল ম্যামসহ এটুআই সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি অনেক অনেক শ্রদ্ধা, ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। শেষে একটি কথায় বলবো যদি লক্ষ্য থাকে অটুট বিশ্বাস হৃদয়ে, হবে হবেই দেখা দেখা হবে বিজয়ে। আজকের মত এখানেই শেষ করছি আবার দেখা হবে কোন এক সময়। সকলের প্রতি আবারও ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বিদায় নিচ্ছি।

 মোহা: জহুরুল ইসলাম

প্রভাষক- ভূগোল বিভাগ,

 নূরুজ্জামান বিশ্বাস কলেজ,

আল্লারদর্গা, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া।

মোবাইল নং- ০১৭১৮৭৩২৩৮২  

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ হাসনাইন
২১ জুন, ২০২০ ১১:১৭ পূর্বাহ্ণ

পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা। ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন , নিজেকে নিরাপদে রাখুন । আমার কন্টেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত সহ লাইক ও রেটিং প্রত্যাশা করছি।https://www.teachers.gov.bd/profile/hasnainhung508


মোঃ শফিকুল ইসলাম
০২ জুন, ২০২০ ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ

আপনার জন্য রেটিংসহ শুভ কামনা।আমার কনটেন্ট দেখার অনুরোধ রইল।


তাছলিমা আক্তার
০১ জুন, ২০২০ ০৬:১০ পূর্বাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম । লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা ও অভিনন্দন । ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন , নিজেকে নিরাপদে রাখুন । আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে লাইক ও রেটিংসহ মূল্যবান মতামত প্রদানের অনুরোধ রইল ।


মোহাম্মদ গোলাম মুক্তাদির
৩১ মে, ২০২০ ১১:২৩ অপরাহ্ণ

শুভকামনা ও অভিনন্দন।


মোহাম্মদ আতাউর রহমান সিদ্দিকী
৩১ মে, ২০২০ ১১:১৪ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিং ও লাইকসহ শুভকামনা ও অভিনন্দন। আমার কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও রেটিং প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।


মোহাঃ জহুরুল ইসলাম
৩১ মে, ২০২০ ১১:০২ অপরাহ্ণ

আমার লেখাটি পড়ার জন্য সম্মানিত সকলকে অনুরোধ করছি। ভালো লাগলে প্লিজ কমেন্ট করুন।