খবর-দার

"শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস"

সঞ্জয় বিশ্বাস ১৪ ডিসেম্বর,২০১৯ ১২০ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( )

আজ "শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস"। জাতির শহীদ সূর্য সন্তানদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা। আমরা তোমাদের ভুলব না।
প্রেক্ষাপট:
১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর মহান মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত বিজয়ের প্রাক্কালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসর রাজাকার, আল বদর, আল শামস বাহিনী জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বরেণ্য হাজার হাজার শিক্ষাবিদ, গবেষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, সাংবাদিক, কবি ও সাহিত্যিকদের চোখ বেঁধে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে তাদের ওপর চালায় নির্মম-নিষ্ঠুর নির্যাতন তারপর নারকীয় হত্যাযজ্ঞ। স্বাধীনতাবিরোধী চক্র বুঝতে পেরেছিল, তাদের পরাজয় । তারা আরো মনে করেছিল যে, বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানরা বেঁচে থাকলে এ মাটিতে বসবাস করতে পারবে না। তাই পরিকল্পিতভাবে জাতিকে মেধাহীন ও পঙ্গুত্ব করতে দেশের বরেণ্য ব্যক্তিদের বাসা এবং কর্মস্থল থেকে রাতের অন্ধকারে পৈশাচিক কায়দায় চোখ বেঁধে ধরে নিয়ে হত্যা করে। ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বরের হত্যাকাণ্ড ছিল পৃথিবীর ইতিহাসে জঘন্যতম বর্বর ঘটনা, যা বিশ্বব্যাপী শান্তিকামী মানুষকে স্তম্ভিত করেছিল। পাকিস্তানি বাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসররা পৈশাচিক হত্যাযজ্ঞের পর ঢাকার মিরপুর, রায়েরবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে বুদ্ধিজীবীদের লাশ ফেলে রেখে যায়। ১৬ ডিসেম্বর মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জনের পরপরই নিকট আত্মীয়রা মিরপুর ও রাজারবাগ বধ্যভূমিতে স্বজনের লাশ খুঁজে পায়। বর্বর পাক বাহিনী ও রাজাকাররা এ দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের পৈশাচিকভাবে নির্যাতন করেছিল। বুদ্ধিজীবীদের লাশজুড়ে ছিল আঘাতের চিহ্ন, চোখ, হাত-পা বাঁধা, কারো কারো শরীরে একাধিক গুলি, অনেককে হত্যা করা হয়েছিল ধারালো অস্ত্র দিয়ে জবাই করে। লাশের ক্ষত চিহ্নের কারণে অনেকেই তাঁদের প্রিয়জনের মৃতদেহ শনাক্ত করতে পারেননি। ১৯৭২ সালে জাতীয়ভাবে প্রকাশিত বুদ্ধিজীবী দিবসের সঙ্কলন, পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ ও আন্তর্জাতিক নিউজ ম্যাগাজিন ‘নিউজ উইক’-এর সাংবাদিক নিকোলাস টমালিনের লেখা থেকে জানা যায়, শহীদ বুদ্ধিজীবীর সংখ্যা মোট ১ হাজার ৭০ জন।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ ইউনুছ আলী
১১ জানুয়ারি, ২০২০ ০৯:৪৩ অপরাহ্ণ

রেটিংসহ শুভকামনা ও অভিনন্দন। আমার কন্টেন্টগুলো দেখে রেটিং, লাইক ও কমেন্ট দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


মোঃ শহিদুল ইসলাম
১০ জানুয়ারি, ২০২০ ০৯:০০ অপরাহ্ণ

রেটিং সহ শুভকামনা রইল। আমার কন্টেন্টগুলো দেখে লাইক, রেটিং ও কমেন্ট দেওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


বিদ্যুৎ কুমার দেব
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০৯:৪০ অপরাহ্ণ

লাইক এবং পূর্ন রেটিংসহ শুভ কামনা রইল


মোঃ জিয়াউর রহমান
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০৯:৩৬ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণরেটিংসহ শুভকামনা রইলো। আমার কনটেন্টগুলো দেখে আপনার সু-চিন্তিত পরামর্শ, লাইক ও মূল্যবান রেটিং দেওয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।


লাইলী আক্তার
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০৮:৩৬ অপরাহ্ণ

লাইক এবং পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা রইল। আমার এই সপ্তাহের কনটেন্ট ৪র্থ শ্রেণির গণিত বিষয়ের অধ্যায় ৪, ভগ্নাংশ কনটেন্টটি দেখবেন এবং মতামত ও রেটিং দিবেন।