যুব সমাজের ধংসের অন্যতম কারন পর্ণগ্রাফী, নগ্ন গান-বাজনা, অশ্লীল নাটক-সিনেমা ও মাদকতা

মো. সারওয়ার জাহান ১৩ সেপ্টেম্বর,২০১৯ ২৯১ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ ()

যুব সমাজকে ধংস করে দিচ্ছে পর্ণগ্রাফী, নগ্ন গান-বাজনা , অশ্লীল নাটক-সিনেমা,ও নারী দেহ ব্যবসায়ীরা। যুব সমাজের অবক্ষয়, পদস্খলন ও অধঃপতনের কারণ অনেক। সবগুলোর আলোচনা করা সম্ভব নয়। তবে নিম্নে মারাত্মক কয়েকটি অবক্ষয়ের কারণ আলোচনা করব। বর্তমানে আমাদের যুব সমাজ অসংখ্য সংকট ও সমস্যায় জর্জরিত। এ সব সংকট ও সমস্যার মধ্য হতে অন্যতম সংকট ও সমস্যা হলো মাদক সেবন ও নেশা করা। ধর্মীয় মূল্যবোধ হারিয়ে যুব সমাজ মাদকের মরণ নেশায় মেতে উঠেছে। বর্তমান সময়ে অধিকাংশ যুব সমাজ মাদকে আক্রান্ত হয়ে ধ্বংসে নিপতিত। মাদক বর্তমানে এত ব্যাপক আকার ধারণ করছে, যার ভয়ানক প্রভাব ও বিস্তার লক্ষ্য করা যায় আমাদের মানুষ গড়ার আঙ্গিনা-শিক্ষাঙ্গনগুলোতেও। এটি বর্তমান সময়ে যুব সমাজের জন্য একটি ভয়ানক পরিণতি ও অশনি সংকেত। তাই, বর্তমানে যদি একজন যুবক নষ্ট হয়ে যাওয়ার আগে তাকে সঠিক পথে রাখার জন্য কিংবা মাদক থেকে দূরে রাখার জন্য সময়মত সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ না করা হয়, তাহলে যুব সমাজের কাছে জাতির যে প্রত্যাশা তা সম্পূর্ণ ব্যর্থ হতে বাধ্য। যুব সমাজ ধ্বংস ও তাদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের প্রধান অন্তরায়। মাদক মারাত্মক পরিণতির দিকে ঠেলে দিয়ে তাকে চিরতরে ধ্বংস ও অকেজো করে দেয়। যুব সমাজকে ধংস করে দিচ্ছে পন্যগ্রাফী, নগ্ন গান-বাজনা , অশ্লীল নাটক-সিনেমা,ও নারী দেহ ব্যবসায়ীরা। ইচ্ছাই হোক আর অনইচ্ছাই হোক নারী-পুরুষ জড়িয়ে পড়ছে পন্যগ্রাফীতে। তরুন-তরুনী প্রেমের বেড়া জালে হারাচ্ছে নিজ অস্তিত্ব, ঘটছে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা, যা কারই কাম্য নয়। পুরুষহীনতাই ভোগতেছে যুবকরা । এর জন্য দ্বায় এই দেশের নারীর খুলামেলা দেহের ব্যবসায়ীরা। কারন তাদের হাতের তৈরী করা এই সব নোংরা ভিডিও যুবকরা খুব সহজেই এখন দেখতে পাচ্ছে । কারণ এ গুলো দেখতে এখন ভিসিডি লাগেনা। লাগে শুধু মেমোরী কার্ড ওয়ালা মোবাইল। এই মেমোরী কার্ডে এই সব সেক্স সিম্বল ভিডিও লোড করে গোপনে বন্ধু বান্ধব নিয়ে দেখে অথবা একা একা নিজেই দেখে। এই সব ভিডিও দেখতে দেখতে যুবকদের শরীরে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। তখন ছেলেটি বাধ্য হয় হস্তমথুন করতে। এই হস্তমথুন করার ফলে যুবকদের শরীরে যৌন দূর্বলতা সৃষ্টি হয়। যার ফলে অনেক যুবকেই এখন বিয়ে করতে ভয় পাচ্ছে। হাজার হাজার যুবক যৌন দূর্বলতাই ভুগছে। এই রকম আরও হাজারাও সমস্যা। এই সব ভিডিও দেখার কারনে যুবকদের মনে সব সময় যৌন চিন্তা থাকে। যার কারনে নারী ধর্ষণ, ইভটিজিং,যৌন হয়রানি দিন দিন বাড়ছে । এই সব ভিডিওর মাঝে আছে বাংলাদেশের তৈরী হট ভিডিও । এই সব ভিডিওতে অভিনয় করেছে মুখস পরিহিতা কিছু বস্তুবাদী মেয়েরা। এছাড়াও রয়েছে প্রেমিক – প্রেমিকার সেক্স ভিডিও যা অজান্তে ভিডিও করা হয়। আছে খোলা মেলা সেক্স ভিডিও। এই সব নোংরা ভিডিও যেই যুব সমাজে প্রচার হয়? সেই যুব সমাজের যুবকরা কিভাবে ভালো থাকবে? নুংরা ভিডিও, নগ্ন গান,অশ্লিল গান-বাজনার দৃশ্যকে যুব সমাজ অনুকরণ করে।জানিনা এই সব পন্যগ্রাফী, নগ্ন গান-বাজনা, অশ্লীল নাটক-সিনেমা ও মাদকতার হাত থেকে আমাদের যুব সমাজ কবে রক্ষা পাবে। বর্তমান সরকারের কাছে অনুরধ রইলো দয়া করে এই পন্যগ্রাফী, নগ্ন গান-বাজনা, অশ্লীল নাটক-সিনেমা ও মাদকতা , নারী দেহের ব্যবসায়ীদের নোংরামী বন্ধ করার যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হোক। মোঃসারোয়ার জাহান

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মুহাম্মাদ আলীমুদ্দীন
২০ মার্চ, ২০২০ ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা । আমার কনটেন্ট দেখে মতামত প্রদানের অনুরোধ রইল


আবদুল্লাহ- আল- মামুন
১২ নভেম্বর, ২০১৯ ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা । আমার কনটেন্ট দেখে মতামত প্রদানের অনুরোধ রইল