কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এর রচনা থেকে দয়ার সাগর ঈশ্বরচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় (বিদ্যাসাগর) সম্পর্কে

সুজিৎ কুমার বিশ্বাস ০৬ নভেম্বর,২০১৯ ২০৯ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ ()

আমরা আরম্ভ করি, শেষ করি না; আড়ম্বর করি, কাজ করি না; যাহা অনুষ্ঠান করি তাহা বিশ্বাস করি না; যাহা বিশ্বাস করি তাহা পালন করি না; ভূরিপরিমাণ বাক্যরচনা করিতে পারি, তিলপরিমাণ আত্মত্যাগ করিতে পারি না; আমরা অহংকার দেখাইয়া পরিতৃপ্ত থাকি, যোগ্যতালাভের চেষ্টা করি না; আমরা সকল কাজেই পরের প্রত্যাশা করি,অথচ পরের ত্রুটি লইয়া আকাশ বিদীর্ণ করিতে থাকি; পরের অনুকরণে আমাদের গর্ব, পরের অনুগ্রহে আমাদের সম্মান, পরের চক্ষে ধূলিনিক্ষেপ করিয়া আমাদের পলিটিকস্ এবং নিজের বাকচাতুর্যে নিজের প্রতি ভক্তিবিহবল হইয়া উঠাই আমাদের জীবনের প্রধান উদ্দেশ্য।

এই দুর্বল, ক্ষুদ্র, হৃদয়হীন, কর্মহীন, দাম্ভিক, তার্কিক জাতির প্রতি বিদ্যাসাগরের এক সুগভীর ধিক্কার ছিল। কারণ, তিনি সববিষয়েই ইহাদের বিপরীত।-----কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
ভাবতেই আবাক লাগে, কতটা বাস্তব লেখা, সেই কতদিন আগের রচনা। এই জন্যই তাঁরা মহামানব।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
সুজিৎ কুমার বিশ্বাস
০৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০৩:৩৫ অপরাহ্ণ

সকলকে দেখা ও মন্তব্য করার জন্য অনুরোধ করছি।


সুজিৎ কুমার বিশ্বাস
০৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০৩:৩২ অপরাহ্ণ

সময় উপযোগী