উদ্ভাবনী ধারণার শিরোনামঃ স্টুডেন্ট মনিটরিং & মেনটরিং

অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা ১৬ এপ্রিল,২০২১ ১৯৭ বার দেখা হয়েছে ১১ লাইক ২৩ কমেন্ট ৪.৯১ (১১ )


১। উদ্ভাবনী ধারণার শিরোনামঃ        স্টুডেন্ট মনিটরিং & মেনটরিং 

২। প্রস্তাবিত আইডিয়াটি:

শিক্ষার্থীদের নিয়েই শিক্ষা দপ্তর তথা শিক্ষক সমাজের যাবতীয় কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে। একটা সময় ছিলো যখন বেশির ভাগ শিক্ষার্থী শিক্ষার নূন্যতম স্তর পর্যন্ত যাওয়ার আগেই ঝরে পরতো। তখন শ্লোগানই ছিলো ঝড়ে পড়া রোধ করতে হবে। আর এজন্য বিভিন্ন কৌশল প্রয়োগ শুরু হলো। এর একটি কৌশল হোম ভিজিট। অর্থাৎ কোন শিক্ষার্থী একটানা তিন দিন বিদ্যালয় বন্ধ দিলে শ্রেণি শিক্ষক  ঐ শিক্ষার্থীর বাড়ি গিয়ে বিদ্যালয় বন্ধ দেয়ার কারণ সহ সে যাতে বিদ্যালয়ে নিয়মিত হয় তার ব্যবস্হা করতেন। সময় ও সভ্যতার পরিবর্তনে মানুষ শিক্ষার গুরুত্ব বুঝতে পারছে। তাই আগের চেয়ে শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা সচেতন হয়েছে। ঝরে পড়ার সেই চ্যালেঞ্জকে অতিক্রম করে এখন আমাদের একটাই চ্যালেঞ্জ মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা। শিক্ষার ফলাবর্তন হয় শিক্ষার্থীর উপর নির্ভর করে। তাছাড়া ডিজিটাল এই যুগে শতভাগ শিক্ষার্থী অন্তত প্রাথমিক স্তর সমাপ্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন দেশের সরকার ও অভিভাবক। তাই মান সম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে শিক্ষার্থী+অভিভাবক +শিক্ষক এই তিন জনের সমন্বয় ছাড়া কোন ক্রমেই সম্ভব নয়। ধরা যাক শিক্ষার্থী হলো নরম কাদা মাটি, শিক্ষক হলো কুমার যিনি নরম কাদা মাটি চাকায় ঘুড়িয়ে পাত্র তৈরি করেন আর অভিভাবক হলো কুমারনী যিনি পাত্রটি ব্যবহার উপযোগী করা পর্যন্ত কুমারকে বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করবেন। সরকার হলো ভোক্তা অর্থাৎ যখন এই শিক্ষার্থী তার অর্জিত জ্ঞান, দক্ষতা ও দৃষ্টি ভঙ্গির সমন্বয় ঘটিয়ে নিজকে যোগ্য করে গড়ে তুলবেন তিনি একে যোগ্যতা অনুযায়ী কাজে ব্যবহার করবেন। ফলে জাতি হবে শিক্ষিত, দক্ষ ও যোগ্য। দেশ হবে সমৃদ্ধ, হবে উন্নত। 

৩। প্রত্যাশিত ফলাফল :

শিক্ষার্থীদের এখন বিদ্যালয়ে আসতে বলার চেয়ে। শিক্ষার্থী বাড়িতে কি করছে? পড়াশোনার মান কেমন? কোথায় ঘাটতি আছে? কি করলে আরও ভালো হবে সেটা জানাই হলো সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত এবং মান সম্মত শিক্ষার অভিষ্ট লক্ষ্য। এজন্যই দরকার সঠিক তদারকি তথা মনিটরিং। আর মনিটরিং করেই থেমে থাকলে হবে না। সাথে সাথে মেনটরিং করতে হবে। অর্থাৎ শিক্ষার্থীর কোথায় কোথায় ভুল আছে শুধু তা চিহ্নিত করে সাথে সাথে তা হাতে কলমে সমাধানের উপায় দেখিয়ে দিতে হবে। তাহলেই মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত হবে এবং জাতি তার অভিস্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হবে। 

৪। বাস্তবায়ন পদ্ধতি :

বাংলাদেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক  ও ছাত্র ছাত্রী অনুপাত হলো ১ঃ৪০। কখনও কখনও এর ব্যাতিক্রম অর্থাৎ কম বা বেশি হতে পারে। একজন শিক্ষক সারা বছর ৪০ জন ছাত্র/ছাত্রীর  শিক্ষা গ্রহণ এর দায়িত্বে নিয়োজিত থাকেন। তাই তাদের শিক্ষা গ্রহণ নিশ্চিত করা একটি নৈতিক দায়িত্ব। একজন শিক্ষক বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী অনুপাত হিসাবে ৪ মাসের জন্য মনিটরিং করবেন। তাতে প্রতি মাসে ১০ জন শিক্ষার্থী মনিটরিং এর আওতায় আসতে পারে। বিদ্যালয় বন্ধ, শিক্ষার্থী কম বা বেশি, একই বাড়ি বা পরিবারের  শিক্ষার্থী হতে পারে তা শিক্ষক সমন্বয় করে নিবেন। যেহেতু আমাদের দেশে প্রতি ওয়ার্ডে কমপক্ষে একটি স্কুল রয়েছে। তাই শিক্ষকগণ তাদের সুবিধা মতো সময় এই শিক্ষার্থীদের মনিটরিং ও মেনটরিং  করবেন। এর ফলে শিক্ষক এর সাথে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মধ্যে একটা সুসম্পর্ক গড়ে উঠবে। শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধি পাবে। 

৫।  যে সমস্যাটি সমাধান করতে চান তার বিবরণ :

সময়ের সাথে সাথে শিক্ষার গুরুত্ব বহুগুণ বেড়ে গেছে। কমে গেছে ঝরে পড়া বা বিদ্যালয় পালানো। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের আনা-গোনায় এক মুখরিত পরিবেশ বিরাজমান। কিন্তু অবক্ষয় হচ্ছে নৈতিকতা, মানবতার। ফলে আমরা যতটা না অগ্রসর হচ্ছি তার চেয়ে অধঃপতন হচ্ছে বেশি। হাড়িয়ে ফেলছি বিশ্বস্ততা। অর্থ আর স্বার্থের মোহে অন্যায়, অবৈধ ও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে আমরা কুন্ঠিত হই না। তাই শিক্ষার্থী মধ্যে এগুলোর প্রভাব যাতে পড়তে না পারে সেজন্য সরাসরি অভিভাবক এর সাথে যোগাযোগ করতে হবে। মাসে কমপক্ষে ১০ জন শিক্ষার্থীর পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে শিক্ষার্থীর পড়াশোনার অবস্থা জানতে হবে। প্রতি দিন কোথায়  কোথায় যায়,  কার কার সাথে মেলামেশা করে, বন্ধু বান্ধব কেমন। পরিবার ও অন্যান্য বড়দের প্রতি তার আচরণ কিরূপ তা যোগাযোগ করে নিশ্চিত হতে হবে। ভালো হলে তো সমস্যা নেই, খারাপ হলে তা কিভাবে ভালো করা যাবে তার উপায় বা কৌশল বের করতে হবে। 

শিক্ষকের তথ্যাবলীঃ


১/ বিভাগের নামঃ

২/ জেলার নামঃ

৩/ উপজেলার নামঃ

৪/ ক্লাস্টার এর নাম 

৫/ বিদ্যালয়ের নামঃ

৬/ শিক্ষকের নামঃ

৭/ মোবাইল নম্বরঃ

৮/ কোন শ্রেণি মনিটরিং করবেনঃ

৯/ শ্রেণির শিক্ষার্থী সংখ্যা 

১০/ মনিটরিং এর তারিখঃ



শিক্ষার্থীর তথ্যাবলীঃ


১/ শিক্ষার্থীর নাম, 

২/শ্রেণি--------------, রোল নং------

৩/ শিক্ষার্থীর শিখন ঘাটতি  আছে কিনা? 


ঘাটতি থাকলে কি ধরনের ঘাটতি আছেঃ

 ক) পড়তে সমস্যা(বর্ণ জ্ঞান, শব্দ জ্ঞান, বাক্য জ্ঞান, উচ্চারণ ও বোধগম্যতা)

 খ) লিখতে সমস্যা (বর্ণের আকৃতি, প্রবাহ, মাত্রাজ্ঞান, ) 

 গ) বুঝতে সমস্যা 

 ঘ) বুঝতে বেশি সময় লাগে 

 ঙ) পড়তে অনাগ্রহ প্রকাশ করে 

 চ) লিখতে অনাগ্রহ প্রকাশ করে 

 ছ) খেলা ধুলার প্রতি আগ্রহ বেশি 

 জ) কারা এর বন্ধু ও তারা পড়াশোনায় কতোটা মনোযোগী। 


 কৌশল বা পদ্ধতিঃ

ক) দৈনিক রুটিন অনুযায়ী পড়াশোনা ও অন্যান্য কাজ করে কিনা?

খ) খেলাধুলার জন্য অতিরিক্ত সময় ব্যয় করে কিনা? করলে প্রতি দিন কত ঘন্টা পড়াশোনা করে? 

গ) অপ্রয়োজনীয় ঘোরাঘুরি করে কিনা? করলে কাদের সাথে? 

ঘ) পরিবারের ও বাইরের যারা বয়সে বড়ো তাদের সম্মান করে কিনা? 

ঙ) তাদের সাথে কেমন আচরণ করে? 

চ) কথায় কাজে কতটা সততার পরিচয় দেয়? 

ছ) ধর্মীয় অনুভূতি কেমন? 

জ) মানুষের প্রতি সহমর্মিতার মনোভাব কেমন?

ঝ) অন্যসব প্রাণীর প্রতি সহানুভূতিশীল আচরণ করে কিনা? 

ঞ) প্রকৃতি ও প্রাকৃতিক পরিবেশ এর প্রতি কেমন মানসিকতা পোষন করে?

ট) পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় সম্পদের প্রতি কি মনোভাব পোষণ করে? 

ঠ) সকল সম্পদ সংরক্ষণে বয়সভেদে কতটা ভূমিকা পালন করে? 


৬। যে কারণে আইডিয়াটি উদ্ভাবন বলে ধরা হবেঃ

যেহেতু বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সকলের দীর্ঘদিন এর প্রচেষ্টায় অবশেষে শিক্ষার্থীদের ঝরে পড়া রোধ করে অধিকাংশ ক্ষেত্রে  সফল হতে সক্ষম হয়েছে। এখন আমাদের একটাই চ্যালেঞ্জ তাহলো গুণগত শিক্ষা নিশ্চিত করা। তাই এই কর্ম যজ্ঞে কিভাবে একজন শিক্ষার্থীর মান সম্মত শিক্ষা গ্রহণ করতে কি কি অন্তরায় তা যেমন ভাবতে হবে তেমন আমাদের যা আছে তাই নিয়ে কিভাবে সমস্যা উত্তরণ করা যাবে তাও ভাবতে হবে। ধরাযাক একটি শিশুর সাঁতার শেখা প্রয়োজন সেক্ষেত্রে কেউ সুইমিং  জ্যাকেট ব্যবহার করতে পারে,  কেউ টিউব ব্যবহার করতে পারে, কেউ বল, কেউ নারকেল, কেউ কলাগাছ, অথবা কেউ জলাশয় এর তীরের মাটি ধরে সাঁতার শেখার চেষ্টা করতে পারে । এক্ষেত্রে যে শিশু মাটি ধরে সাঁতার শিখছে সেও সাঁতারু হতে পারে আর যে সুইমিং জ্যাকেট পরে সাঁতার শিখছে সে শুধু জীবন রক্ষা বা সাঁতার কাটার আনন্দ উপভোগ করতে পারে। যেহেতু বাংলাদেশে শিক্ষক ছাত্র/ছাত্রী অনুপাত ১ঃ৪০ সেহেতু প্রতি মাসে ১০ জন শিক্ষার্থীর খোঁজ খবর নিবেন। এবং এই খোঁজ খবর ভিজিবল হবে।  পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য শিক্ষকদের মধ্যেও নতুন নতুন ধারনার সৃষ্টি হতে পারে এবং বাড়িতে অভিভাবকদের সাথে যোগাযোগ করে যাবতীয় সুবিধা ও অসুবিধা সমূহ চিহ্নিত করতে পারবেন।  তাই শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধির জন্য এ কাজটি সহায়ক হবে বলে আমার ধারণা।


ধন্যবাদান্তে-

অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা

সহকারী শিক্ষক

নিয়ামতি আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

বাকেরগঞ্জ, বরিশাল 

০১৭১৯-৭৭৮১৩৪        

   

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
Hasina Momotaj
০৯ মে, ২০২১ ০৫:৪১ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিং ও লাইকসহ শুভকামনা ও অভিনন্দন। আমার কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত , রেটিং ও লাইক প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি ।


মোঃ গোলজার হোসেন
১৭ এপ্রিল, ২০২১ ০৩:৪৬ অপরাহ্ণ

লাইক ও পুর্ণ রেটিং সহ শুভ কামনা ও অভিনন্দন । আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট গুলো দেখে আপনার মুল্য বান মতামত ,লাইক ও পুর্ণ রেটিং প্রদানের জন্য বিনীিত অনুরোধ করছি ।


মোঃ গোলজার হোসেন
১৭ এপ্রিল, ২০২১ ০৩:৪৬ অপরাহ্ণ

লাইক ও পুর্ণ রেটিং সহ শুভ কামনা ও অভিনন্দন । আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট গুলো দেখে আপনার মুল্য বান মতামত ,লাইক ও পুর্ণ রেটিং প্রদানের জন্য বিনীিত অনুরোধ করছি ।


মোঃ মেহেদুল ইসলাম
১৭ এপ্রিল, ২০২১ ১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ

আমার এই কন্টেন্ট দেখে আপনাদের সুচিন্তিত ও পরামর্শের রেটিং জন্য আশা করছি https://www.teachers.gov.bd/content/details/921177 দয়া করে আমার ব্লগে রেটিং দিবেন স্যার ও ম্যাম মহোদয়গন https://www.teachers.gov.bd/blog-details/598471


মোহাম্মদ শাহাদৎ হোসেন
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০২:৪৫ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন এবং নিরাপদে থাকবেন। আবারও ধন্যবাদ।


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫২ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


মোঃ আবুল কালাম
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০২:৩১ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫২ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


বিপুল সরকার
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০১:২৫ অপরাহ্ণ

স্যার/ম্যাডাম , নমস্কার / আদাব নিবেন।আপনি শ্রেণি উপযোগী ও মান সম্মত কনটেন্ট আপলোড করে বাতায়নকে সমৃদ্ধি করেছেন,আপনাকে অভিনন্দন।লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভ আপনার জন্য অনেক অনেক শুভ কামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত এ পাক্ষিকের ১৪৪ তম (নবম-দশম শ্রেণি) পরিমিতি (বৃত্ত) কন্টেন্ট দেখে আপনার গঠনমূলক মূল্যবান মতামত প্রত্যাশা করছি।(bipulsarkar1977)


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


মোঃ নূরল আলম
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ১০:৩৩ পূর্বাহ্ণ

শুভেচ্ছা রইল লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ। আপনাকে একটু সহ্যোগিতা করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। সেই সাথে কর্তৃপক্ষের সু দৃস্টি কামনা করছি।আমার আপলোডকৃত ৪৯ ও ৫০তম কনটেন্ট দেখে মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


মোঃ জাফর ইকবাল মন্ডল
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম, লাইক ও পুর্ণরেটিং সহ আপনার জন্য শুভ কামনা নিরন্তর। আমার গত ০৩/০৪/২০২১ ইং তারিখে আপলোডকৃত পানিতে ডোবা ৪র্থ প্রাথমিক রিজ্ঞান কনটেন্ট দেখার অনুরোধ রইলো।


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


শাহনাজ আক্তার
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং স হসশুভ কামনা।আমার ৬১তম কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে গঠন মূলক মতামত দেওয়ার অনুরোধ রইল। আমার কনটেন্ট লিংক https://www.teachers.gov.bd/content/details/916215


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫১ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


লুৎফর রহমান
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৯:১৭ পূর্বাহ্ণ

পবিত্র মাহে রমজান ও বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা। লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইলো। আমার এ পাক্ষিকে আপলোডকৃত ৫৬ তম কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে লাইক,গঠন মূলক মতামত ও রেটিং প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। কনটেন্ট লিংকঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/913039 Blog link: https://www.teachers.gov.bd/blog-details/598434


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


মোঃ মামুনুর রহমান
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৩৫ পূর্বাহ্ণ

মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং মুজিব শতবর্ষ ও পবিত্র মাহে রমজানের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। শ্রেণি উপযোগী, মানসম্মত ও চমৎকার কনটেন্ট, ভিডিও কনটেন্ট, ব্লগ, উদ্ভাবনী গল্প ও অন্যান্য উপস্থাপনার জন্য লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা রইলো। এই পাক্ষিকের আমার ০৩/০৪/২১ তারিখের ৮ম শ্রেণির বিজ্ঞান বিষয়ের "মাইটোসিস কোষ বিভাজন" সম্পর্কিত কনটেন্ট এবং ০৭/০৪/২১ তারিখের ভিডিও কনটেন্টিতে লাইক, কমেন্ট, শেয়ার ও পূর্ণ রেটিং প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট বিনীতভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি। এছাড়াও সম্মানিত প্যাডাগোজি রেটার ও এডমিন প্যানেল মহোদয়, সেরা কন্টেন্ট নির্মাতা, সেরা উদ্ভাবক, আইসিটি জেলা অ্যাম্বাসেডরবৃন্দ ও সেরা অনলাইন পারফর্মারদের নিকট গুরুত্বপূর্ণ মতামতসহ পূর্ণ রেটিং আশা করছি। বাতায়ন আইডি : mamunggghsc10 , Profile Name : মোঃ মামুনুর রহমান , Content Link : https://www.teachers.gov.bd/content/details/913807 Video Content Link: https://www.teachers.gov.bd/content/details/916061


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৫:৫০ অপরাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


মঞ্জু রানী পাল
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ শুভ কামনা রইল।আমার আপলোডকৃত ৪৬তম কনটেন্টটি দেখে লাইক,রেটিং,কমেন্ট প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। কনটেন্ট লিংকঃhttps://www.teachers.gov.bd/content/details/914030


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৮:৪১ পূর্বাহ্ণ

ধন্যবাদ ও শুভকামনা রইলো


অজয় কৃষ্ণ গোমস্তা
১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ণ

সম্মানিত বাতায়ন কর্তৃপক্ষ, প্যাডাগজী রেটার, সকল ক্যাটাগরীর সেরা শিক্ষক ও আপলোডকারী শিক্ষক মহোদয় এর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমার এ আইডিয়া টি কেমন লাগলো। কোথাও সংযোজন বা বিয়োজন লাগলে জানানোর জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। আর এটা যদি আমাদের গুণগত শিক্ষা অর্জনেে কোন কাজেে লাগে তবে ধন্য হবো।