কষ্ট (পর্ব-১), কষ্ট অতি পরিচিত একটি শব্দ। এই শব্দটির সঙ্গে কম বেশি অনেকেই খুবই সুপরিচিত।

মোঃ নজরুল ইসলাম ২৪ মে,২০২১ ৬৬ বার দেখা হয়েছে লাইক ২১ কমেন্ট ৪.৭৩ (১১ )

                        কষ্ট  (পর্ব-১)


         কষ্ট নিবেন গো কষ্ট, কষ্ট নিবেন গো কষ্ট, এই কষ্ট ছিল, কষ্ট, কষ্ট। হরেক রকমের কষ্ট ছিল গো, হরেক রকমের কষ্ট। এই লাল কষ্ট ছিল, নীল কষ্ট ছিল, হলুদ কষ্ট ছিল, সবুজ কষ্ট ছিল, সাদা কষ্ট ছিল। এই কষ্ট ছিল, কষ্ট লাগবে না কি গো কষ্ট।বিভিন্ন ধরনের কষ্ট ছিল গো কষ্ট। এই কষ্ট ছিল গো কষ্ট। এই হালকা কষ্ট ছিল, মাঝারি কষ্ট ছিল, ভারি কষ্ট ছিল। এই কষ্ট লাগবে না কি গো কষ্ট।

        পূর্ব দিগন্তে সূর্যের রক্তিম আভাস।চারিদিকে পাখির কলকাকলি ধ্বনি, কিচিরমিচির শব্দ, হালকা শীত শীত  ভোরের হাওয়া। মাঝারি কুয়াশা। আম্র মুকুলের সুঘ্রান,মৌমাছির ভোঁ ভোঁ শব্দ,মন উতাল করা মনোরম পারিপার্শ্বিক পরিবেশ। বাড়ির পার্শ্বের উঁচু গাছ থেকে  কোকিলের মন মাতানো কুহু কুহু ডাক। 

          এরই মধ্যে প্রেয়সীর ডাক, কি গো  এখনো উঠনি? কি গো এখনো উঠনি? এই উঠ! এই উঠ! উঠে, চা  নাও। খিতিশ ভাবছে, ভালই তো লাগছে। আর একবার ডাকুক না কেন?এরই মাঝে ডাক, এই উঠ! এই উঠ! চা যে ঠাণ্ডা শরবত হয়ে গেল। খিতিশ ভাবল,আর নয় অনেক  হয়েছে।তাড়াতাড়ি  উঠি বাবা,নইলে খবর আছে।

          দুই জনে মিলে চায়ের কাপে চুমুক দিচ্ছে আর অতীতের সেই মধু মাখা, স্মৃতি ঘেরা, সোনালী দিনের, রুপালী স্বপ্ন গুলোর কথা আলোচনা করছে। কবে, কখন, কোন দিনে কোথায়, কিভাবে ঐ টি বাঁধে,কেন্দ্রীয় পার্কে,নদীর ধারে দুই জনে মনের আনন্দে মধুর সময় গুলো অতি বাহিত করেছিল সেই সব মধুময় স্মৃতি গুলো  মনে করছিল আর ভাবছিল,

        ধরণীর শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি তাদের প্রেম, তাদের ভালবাসা। জন্মদাত্রী মমতাময়ী জগত মাতার পরম উপহার। সকালের শৈশব স্পন্দিত এবং 

ভোরবেলার শিউলীর ঘ্রাণে দৃশ্যমান  হয়ে আছে তাঁরা দুই জন।

 সকাল, সন্ধ্যা নিত্য জীবন যুদ্ধে তাঁদের

হৃদয়ের ক্ষত বিক্ষত আহতের শান্তনায় 

অদৃশ্য শক্তি সাহস সরসতার কেন্দ্রবিন্দুতে 

সোনার ফসলের সোনালী হাসিতে যেন ভরিয়ে দিয়েছে প্রেয়সীর সুন্দর মুখ খানি। শব্দে, বাক্যে বিক্ষত হৃদয়ে বিষম শীতল পরশে তাঁদের আবেগের কথা। মহান আল্লাহর অম্লান সৃষ্টিতে স্বর্গীয় সৌন্দর্য, সুখে দুঃখে, কটু কথায় ধৈর্য্য ধারণ, বুক ভরা আশা ভালবাসার স্বপ্ন নিয়ে মধুর মধুর ভাবনা, ঘরের দীপ্ত প্রজ্বলিত প্রদীপের চির বিজয়।

ছেলে মেয়েদের জীবন জীবিকা, মেয়ের শ্বশুর বাড়ির গুরুজনদের সন্মান, শ্রদ্ধা,  সত্য সুন্দর, দীক্ষা শিক্ষা, প্রভৃতি।


            স্মৃতিময় দিন গুলো ভাবতে ভাবতেই হঠাৎ তাঁরা বাস্তব জীবনে  ফিরে  আসে

তাদের মনে  হল যে, এই আজ কাঁচা বাজার নেই। ছোট মাছ কেনা লাগত। মেয়েদের প্রাইভেট /কোচিং এ যাতায়াত এর জন্য রিক্সা ভাড়ার অর্থের প্রয়োজন। মাস শেষের দিকে নিজেদেরো হাত খরচের জন্য টাকা প্রায় শেষ। স্ত্রী বলছে হ্যাঁ গো আমার যে একটা ম্যাক্সি লাগত, এই মাসে কি দেওয়া  সম্ভব  হবে। ছেলে এসে বলে আব্বা আমার কোচিং ফি যে লাগত। কিছুক্ষন পর মেয়ে এসে বলছে আব্বা  তোমার কাছে কি কোন টাকা হবে? কেন মা! না মানে, যদি হত তাহলে আমার একটি জামা কেনা লাগত। এরই মাঝে স্ত্রী বলে উঠল  এই শোনছো, এই শোনছো, এই মাসে বিদ্যুৎ বিল পাঁচ হাজার সাত শত পঞ্চাশ টাকা এসেছে। ঠিক আছে মা, ঠিক আছে মা আমার। এই তোমার মাথায় কোন সমস্যা  হয়েছে না কি গো? কেন মা, তোমার কি তাই মনে হচ্ছে? এই যা, এইবার তো মনে হচ্ছে মাথা পুরোটাই  গেছে। না রে মা, চৈত্র মাসে গরু হারালে তাই হয়। আমার যে চৈত্র  মাসে গরু হারিয়ে গাছে। ওমা,তোমার আবার গরু হারালো কবে, আর তুমিই বা গরু কিনলেই বা কবে? আমরা তো কিছুই  জানি না।

         খিতিশ  বলে ওরে জন্মের মা আমার, দয়া করে একটু  থাম, একটু চুপ থাক। স্ত্রী ও সন্তানদের সঙ্গে চা -চক্র শেষ করে খিতিশ অফিসের উদ্দেশ্যে রওনা হল। মনের মধ্য একটি কথা বার বার ধাক্কা মারছিল তা হলো, আগে কি সুন্দর দিন কাটাতাম, আগে কি সুন্দর দিন কাটাতাম,  আর মন মাঝি তোর বৈঠা নে রে, আমি আর বাইতে পারলাম না এই গানের চরন গুলো। বারংবার মনের মধ্যে দোল খাচ্ছিল।

          খিতিশ প্রতিদিনের ন্যায় যথাসময়ে অফিসে হাজির হল। অফিসের দৈনন্দিন কার্যাদি শেষে যথা সময়ে বাড়ি ফিরল। হাত, মুখ ধুঁয়ে খাবারের পর্ব শেষ  করতেই একটি ফোন আসল। ফোনে কথা শেষ করে, ফোনটি রেখে দিতেই তাঁর স্ত্রী জিঙ্গাসা করল,কে ফোন দিয়েছে? খিতিশ উত্তর দিল, যদু ফোন  দিয়েছিল। উনি কি বললেন।উনি...........ইত্যাদি ইত্যাদি বললেন। তারপর বাব্বা! শুরু হল লম্বা এক ফিরিস্তি।

          খিতিশের মাথায় বজ্রপাত ঘটল। মনের মধ্যে শুরু হল উথাল পাতাল। সমুদ্রে দেখা দিল ১০ নং মহাবিপদ সংকেত। আকাশে দেখা দিল কালো মেঘের ঝলসানি।মাঝে মধ্যে অতর্কিত দমকা ঝড়ো হাওয়া। চারিদিকে মনে হলো কুটকুটে অন্ধকার। নিস্তব্ধ, জন, মানব হীন পথ ঘাট। বাতাস কেমন যেন ভারি হয়ে যাচ্ছিল।দম বন্ধ হওয়ার মত অবস্থা। বাতাসে প্রচণ্ড অক্সিজেনের ঘাটতি,যার দরুন শ্বাস পরিচালনা করা প্রচণ্ড রকমের কষ্ট সাধ্য। শরীরের সব শক্তি যেন শেষ হয়ে আসছিল। সে যে কি কষ্ট, কি কষ্ট, অনুভব করা কঠিন। শুধুই কষ্ট, কষ্ট আর কষ্ট। 

                                          

                                                ( চলমান) 


                                         মোঃ নজরুল ইসলাম 

                                    সূর্যকণা উচ্চ বিদ্যালয়, 

                                     সিরোইল, রাজশাহী

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
বর্ণালী সাহা
২৭ মে, ২০২১ ১০:১৭ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ আপনার জন্য শুভকামনা রইল।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৮ মে, ২০২১ ০৪:০০ অপরাহ্ণ

অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


ড. মোঃ আকতারুল ইসলাম
২৬ মে, ২০২১ ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ণ

সুন্দর উপস্থাপনা ও সময়োপযোগী লিখার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ । পূর্ণরেটিংসহ শুভ কামনা রইল ,সেইসাথে আমার ব্লগে লিখা দেখে পরামর্শ আশা করছি।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৮ মে, ২০২১ ০৪:০০ অপরাহ্ণ

অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


শরীফুল ইসলাম
২৫ মে, ২০২১ ০১:১০ অপরাহ্ণ

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উপাত্ত প্রদানের জন্য পূর্ণ রেটিং সহ শুভ কামনা । আমার কন্টেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ রইলো। আমার কন্টেন্ট লিংকঃ https://www.teachers.gov.bd/content/details/946925


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৮ মে, ২০২১ ০৪:০১ অপরাহ্ণ

অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


মোহাম্মদ শাহাদৎ হোসেন
২৪ মে, ২০২১ ০৬:৪৫ অপরাহ্ণ

👉 লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন এবং নিরাপদে থাকবেন। আবারও ধন্যবাদ।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৮ মে, ২০২১ ০৪:০১ অপরাহ্ণ

অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


মোঃ আবুল কালাম
২৪ মে, ২০২১ ০২:৫৭ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা । আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত প্রদানের জন্য অনুরোধ রইলো ।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ০৬:১৯ অপরাহ্ণ

স্যার, অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


মোঃ মুজিবুর রহমান
২৪ মে, ২০২১ ১২:৩০ অপরাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম। লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা রল। আমার আপলোডকৃত কনটেন্ট দেখে আপনার সুচিন্তিত মতামত লাইক ও পূর্ণ রেটিং দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রল।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ০৬:১৮ অপরাহ্ণ

স্যার, অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


মোঃ নূরল আলম
২৪ মে, ২০২১ ১০:২২ পূর্বাহ্ণ

মানসম্মত কনটেন্ট আপলোড করে বাতায়নকে সমৃদ্ধ করার জন্য আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ। লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত ৫১তম কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ করছি।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ০৬:১৭ অপরাহ্ণ

স্যার, অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


লুৎফর রহমান
২৪ মে, ২০২১ ০৭:০৯ পূর্বাহ্ণ

Great work! Thanks for nice content and best wishes including full ratings. Your active participation and submission of your wonderful contents have made the Batayon more enriched. Please give your like, comments and ratings to see my contents and blogs. https://www.teachers.gov.bd/content/details/943594 Blog link: https://www.teachers.gov.bd/blog-details/602481 Batayon ID: https://www.teachers.gov.bd/profile/Lutfor%20Rahman


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ০৬:১৬ অপরাহ্ণ

স্যার, অনেক অনেক শুভকামনা রইল।


মোঃ মানিক মিয়া
২৪ মে, ২০২১ ০৬:৩৮ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও রেটিংসহ শুভ কামনা এবং আমার ৩৮তম প্রেজেন্টেশন কণ্টেন্ট "চোখের ত্রুটি ও প্রতিকার"দেখার জন্য আমন্ত্রণ রইল।ধন্যবাদ। https://www.teachers.gov.bd/content/details/945395


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ণ

স্যার, অনেক অনেক শুভকামনা এবং অন্তরের ভালবাসা রইল।


মোছাঃ হোসনেয়ারা পারভীন
২৪ মে, ২০২১ ০৫:৫৩ পূর্বাহ্ণ

মানসম্মত কন্টেন্ট আপলোড করে বাতায়নকে সমৃদ্ধ করায় আপনাকে ধন্যবাদ। লাইক রেটিং সহ আপনার জন্য রইলো শুভকামনা। আমার এ পাক্ষিকে আপলোডকৃত কন্টেন্ট ও ব্লগ দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য অনুরোধ রইলো। https://www.teachers.gov.bd/content/details/944098 https://www.teachers.gov.bd/blog-details/602249


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ণ

ম্যাডাম, অনেক অনেক ধন্যবাদ এবং শুভকামনা রইল।


মোঃ নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২১ ১২:৩৩ পূর্বাহ্ণ

শ্রদ্ধেয় স্যার /ম্যাডাম, আমার সালাম গ্রহণ করবেন। সকলের অতি পরিচিত একটি শব্দ কষ্ট নিয়ে কিছু একটা লিখার চেষ্টা করেছি মাত্র। যদি ভাল লাগে তবে লাইক, কমেন্ট এবং পূর্ণ রেটিং প্রত্যাশা করছি।