শিক্ষায় অগ্রযাত্রা

শিক্ষকদের নিয়মিত ডোপ টেস্ট করার সুপারিশ

মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন ১০ নভেম্বর,২০২১ ২৯ বার দেখা হয়েছে লাইক কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( )

মাদকের ভয়াল থাবা থেকে দেশ-জাতি তথা ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীদের ডোপ টেস্টের আওতায় আনার সুপারিশ করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। একইসাথে সরকারি সংস্থার কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ও কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ডোপ টেস্ট করার সুপারিশ করা হয়েছে। 

গত ৩ অক্টোবর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়েছে। গত রোববার কমিটির সভায় ওই কার্যবিরণী অনুমোদন দেওয়া হয়। সম্প্রতি কার্যবিবরণীটি প্রকাশ পেয়েছে।

জানা গেছে, ৩ অক্টোবরের সভায় সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকু। বৈঠকে কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, পীর ফজলুর রহমান, নূর মোহাম্মদ এবং বেগম রুমানা আলী অংশ নেন। 

এ সভাতে র‌্যপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, কক্সবাজার এলাকার বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষকরাও মাদকের কারবারে জড়িত। স্থানীয় এই ব্যক্তিরা একে পার্টটাইম ব্যবসা হিসেবে মনে করেন।

কমিটির সভাপতি শামসুল হক টুকু বৈঠকে বলেন, ডোপটেস্ট চালুর কারণে মাদকাসক্তরা ইদানিং সতর্ক হচ্ছে। এমপি-মন্ত্রী, রাজনীতিবিদ, বিচারপতি, আইনজীবী, সরকারি কর্মকর্তা, শিক্ষক সর্বক্ষেত্রে ডোপটেস্ট চালু রাখার বিষয়টি বিবেচনা করা প্রয়োজন। ডোপ টেস্টের কারণে সন্তান বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে না পারলে সমাজের সবাই সচেতন হবেন।

বৈঠকে সাত দফা সুপারিশ করা হয়। সেগুলোর মধ্যে আছে,আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সকল সরকারি সংস্থা বা দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারী, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছাত্র-শিক্ষক কর্মচারীদের নিয়মিত ডোপ টেস্টের আওতায় আনতে হবে।

সভার অন্যান্য সুপারিশগুলো হলো, নারীর প্রতি সহিংসতা, বাল্য বিয়ে রোধ, যৌন হয়রানী ও ধর্ষণ বন্ধে দেশের প্রতিটি থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার তত্ত্বাবধানে একজন নারী কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দিতে হবে। মাদক নিয়ন্ত্রণে সীমান্তে কড়া নজরদারী, মাদক সংশ্লিষ্ট সীমান্তে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধিসহ মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতা কার্যক্রমগুলো আরও বেশি দৃশ্যমান করতে হবে। বাল্য বিবাহ বন্ধে গ্রামভিত্তিক সচেতনতা কার্যক্রম চালু করতে হবে।

ইভটিজিং ও ধর্ষণ বন্ধে আইন শৃংখলা বাহিনীকে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। স্কুল-কলেজ এলাকায় ছাত্রীদের চলাচলের পথে বখাটেদের উৎপাত বন্ধে সিসি ক্যামেরা ও পুলিশের কঠোর নজরদারী বাড়াতে হবে। ৯৯৯ নম্বরকে আরও বিস্তৃত ও গতিশীল করতে হবে এবং কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমকে আরও বেগমান করতে হবে।

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
মোঃ রওশন জামিল
১২ নভেম্বর, ২০২১ ০৮:৫৪ অপরাহ্ণ

চমৎকার কন্টেন্ট আপলোড করার জন্য ধন্যবাদ। শুভ কামনা রইলো।।


মোঃ মামুন হোসেন
১১ নভেম্বর, ২০২১ ০৬:০৩ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভ কামনা রইল।আমার এ পাক্ষিকের কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান লাইক,রেটিং ও মতামত দেয়ার জন্য অনুরোধ রইলো।


কল্লোল চক্রবর্ত্তী
১১ নভেম্বর, ২০২১ ০৯:০৮ পূর্বাহ্ণ

গঠনমূলক কাজ সব সময়ই প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য।স্যার আপনার শ্রেণি উপযোগী ও মানসস্মত কনটেন্ট দেখে আমি খুবই আশাবাদি যে,শিক্ষার্থীদের অবশ্যই উপকারে আসবে। আমার পক্ষ থেকে লাইক ও পূর্ণরেটিংসহ শুভ কামনা রইল। আমার শ্রমকে আরোও গতিশীল করতে আপনার লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ পরামর্শ দেওয়ার জন্য বিনীত ভাবে আশা করছি,কনটেন্ট লিংক http://www.teachers.gov.bd/ content/details/1668798, ধন্যবাদ।


উম্মে শারমিন
১১ নভেম্বর, ২০২১ ০৭:৫১ পূর্বাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ অনেক শুভ কামনা। আমার কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান লাইক,রেটিং ও মতামত দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইলো।


কোহিনুর খানম
১০ নভেম্বর, ২০২১ ০৪:২৭ অপরাহ্ণ

আসসালামু আলাইকুম। সুন্দর ও শ্রেনী উপযোগী কন্টেন্ট আপলোড করে বাতায়নকে সমৃদ্ধ করার জন্য আপনাকে পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা ও অভিনন্দন। আমার কন্টেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত প্রদান করুন। ভালো লাগলে রেটিং, লাইক ও কমেন্ট দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল। কন্টেন্ট লিংক: https://www.teachers.gov.bd/content/details/1169275