খবর-দার

চট্টগ্রাম অনলাইন স্কুলের এক মাস পূর্তিতে আমার নিজস্ব ভাবনা।

মমতাজ রোখসানা আখতার ২৩ মে,২০২০ ৮৪ বার দেখা হয়েছে ১৯ লাইক ৩৫ কমেন্ট ৫.০০ রেটিং ( ১৯ )

চট্টগ্রাম অনলাইন স্কুলের এক মাস পূর্তি্তে আমার ভাবনা

গতকাল ২২শে মে ২০২০ ইং শেষ হয়ে গেল চট্টগ্রাম অনলাইন স্কুলের মাস পূর্তি পরিচালনায় ছিলেন জনাব আখতার হোসেন কুতুবী স্যার, শিক্ষক প্রশিক্ষণ কলেজ, চট্টগ্রাম অতিথি হিসাবে ছিলেন এটু আই সংযুক্ত কর্মকর্তা জনাব রফিকুল ইসলাম সুজন স্যার , জনাব মোহাম্মদ কবির স্যার, জনাব অভিজিৎ সাহা স্যার, অংশগ্রহণকারী শিক্ষক হিসাবে যারা চট্টগ্রাম অনলাইন স্কুলের ক্লাস নেওয়ার সাথে জড়িত তারাই ছিল, সে হিসাবেই আমি ছিলাম তাদের একজন হিসাবে কোভিড - ১৯ এই ক্রান্তিকালে আমার জানামতে শিক্ষার্থীদের কথা ভেবে আমাদের শিক্ষা মন্ত্রণালয় তথা শিক্ষক সমাজ শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকলেই মিলে সংসদ টেলিভিশন, কিশোর বাতায়ন, জেলায় উপজেলায় যার যেমন সাধ্য অনলাইন ভিত্তিক স্কুল পরিচালনা করে শিক্ষার্থীদের নিয়মিত পড়াশুনায় যাতে কোনো ক্ষতি না হয় সে বিষয় বিবেচনায় এনে এই মহৎ কার্যক্রম পরিচালিত হয় এখানে আমার প্রশ্ন হচ্ছে আমরা কতটা সফল এই কার্যক্রমে? যাদের জন্যই আমাদের এই নিরন্তন প্রচেষ্টা তাদের কাছেই বা আমরা কতটা পোঁছাতেই পারছি, সেটার কী কোনো সঠিক পরিসংখ্যান আমাদের কাছে আছে? অনলাইন স্কুলগুলো প্রত্যেকের নিজ খরচের নিরন্তন প্রচেষ্টার এক সুন্দর ফসল, কিন্ত অভিভাবকহীন ভাবে এই ফসল কতটুকুই বা ঘরে উঠবে সে প্রশ্ন বারবার ঘুরপাক খাচ্ছে আমার কাছে? শিক্ষা পরিবারের মূল অভিভাবক হচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়, জেলা শিক্ষা অফিস, থানা শিক্ষা অফিস উপজেলা শিক্ষা অফিস বাস্তব চিত্র হচ্ছে আমরা ওনাদের কোনো উপস্থিতি দেখতে পাচ্ছি না, যার কারণে সরকারী স্কুলের শিক্ষকবৃন্দ হাতে গোনা দুই একজন ছাড়া সবাই কোভিড -১৯ কানীল ছুটি উপভোগ করছেন বেসরকারী শিক্ষকরা যে সবাই কাজ করছেন তা না, এখানে বলে রাখা ভালো যে যারা এটু আই এর সাথে সম্পৃক্ত তারাই শুধুমাত্র এই কাজ করে যাচ্ছেন তাহলে জানা দরকার এদের সংখ্যা কত? এদের পক্ষে কি ১৮ কোটি জনসংখ্যার এদেশের প্রান্তিক পর্যায়ে প্রত্যেকের কাছে পৌঁছানো সম্ভব? আমি এখানে সম্পূর্ণ কৃতিত্ব এটু আই কে দিব কারণ এটু আই এর উৎসাহের কারনে শিক্ষক সমাজ অসাধ্যকে সাধন করছেন, তবে আরো একটি উল্লেখযোগ্য দিক না বললেই নয় যে, আমাদের যে সকল বিগত দিনের বাতায়ন সেরা এম্বাস্যাডর সম্মান্বিত শিক্ষকবৃন্দ প্রায় বাতায়নে লগইন করা ভুলেই গিয়েছিল তবে আশার কথা হলো যে কিছু বাতায়ন সেরা শিক্ষক আবার নতুন করে সেখানে পদচারনা শুরু করেছেন সেরা উদ্ভাবক হওয়ার জন্য, এখন আবার দেখছি যে অনলাইন স্কুলের রুটিন ভারী করার জন্য সেখানে তাদের পদচারণা বেড়েছে যার কারনে অনলাইন স্কুলের একই শিক্ষক বারবার ক্লাস নিচ্ছেন জেলায় জেলায় আরো অনেক ভাল শিক্ষক থাকা সত্বে বাতায়ন কে এখন সমৃদ্ধ করে যাচ্ছেন যারা এখনো সেরা হতে পারেন নি তারাই, আমার এখন প্রশ্ন হচ্ছে পাক্ষিক সেরা সেরা উদ্ভাবক হওয়ার পর তারা কি পূর্বসুরীদের মত হারিয়ে যাবেন? আমি এখানে কাউকে ছোট করার জন্যই কোনো কথা লিখছিনা শুধু বাস্তব চিত্র টা তুলে ধরার চেষ্টা করছি মাত্র তবে অনলাইন স্কুলের একটা সুফল আমার কাছে মনে হচ্ছে যে, যারা কাজ করছেন তারাই নিজেকেই সমৃদ্ধ করছেন, এতে কোনো সন্দেহ নাই, তবে সবাইকে কাজ করার সুযোগ দিতে হবে তবে এটু আই এর সংযুক্ত কর্মকর্তা জনাব অভিজিৎ সাহা স্যার এর কথার সাথে একমত পোষণ করে বলছি যে, চট্টগ্রামে ও অনেক ভালো ভালো শিক্ষক এবং এম্বাস্যাডর শিক্ষক থাকা সত্বে ও ওনাদের চট্টগ্রাম অনলাইন ক্লাসে দেখা যাচ্ছে না। দেশের বেশ কয়েকটি অনলাইন স্কুলের চিত্র ও তাই দেখা যাচ্ছে। নিজ জেলায় সুযোগ না পেয়ে অন্য জেলার অনলাইন স্কুলে কাজ করছেন কাজ প্রেমী শিক্ষকবৃন্দ। তাহলে আমাদের বুঝে নিতে হয় যে, বাংলা প্রবাদ বাক্যকে, “বাড়ির গরুইয়ে ঘাটার ঘাস খায় না”। তবে এটু আই এর কাছে আমার অনুরোধ থাকবে যে, আমরা যাতে এর সুফল ঘরে ঘরে পোঁছাতে পারি তার জন্য অবশ্যই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় শিক্ষা সংশ্লিষ্ট সকল অফিসকে যুক্ত করতে হবে হয়তোবা তাদের মাধ্যমেই সম্ভব হবে সমাজের প্রান্তিক পর্যায়ে আমাদের এই কার্যক্রম টা পোঁছানো।  এখন শুধু মাত্র অনলাইন সেবার আওতাভুক্ত তারাই যারা মৌলিক চাহিদা পুরন করার পর হাতে উদ্বৃত্ত অর্থ থাকে তারাই সমাজের প্রান্তিক পর্যায়ে পোঁছাতে হলে আমাদের কি কি করনীয় সেটা এখন ভাবার বিষয় তবে আমরা পিছিয়ে থাকবো না চেষ্টা করে যেতে দোষ কোথায়? শেষ করছি জনাব রফিকুল ইসলাম সুজন স্যার এর কথা দিয়ে, প্রয়োজনে আমরা প্রত্যেকের কাছে যাবো, প্রত্যেকের সাথে মত বিনিময় করবো এই বিষয়ে আর শ্রদ্ধা জানাচ্ছি একমত পোষণ করছি জনাব কবির স্যার এর কথার সাথে, তিনি বলেছেন যে আমরা প্রত্যেকের কথা শুনবো এবং মতামতকে সম্মান জানাবো আমার বৃটিশ বন্ধু আমায় জিজ্ঞেস করেছিল বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় দীর্ঘ সময় স্কুলে অবস্থান করে, কিন্তু তাদের জ্ঞানগত গভীরতা এত কম কেন? আমি শুধু এর উত্তর খুঁজে বেড়ায় কিন্তু আজো এর সঠিক কোনো সমাধান পায় নি সবার সহযোগিতায় এবং নিজ নিজ প্রচেষ্টায় হয়তোবা একদিন আমরা সঠিক গন্তব্যে পোঁছে যাবো সেদিন বোধহয় বেশী দূরে নয় চট্টগ্রাম অনলাইন স্কুল তথা বাংলাদেশে সকল অনলাইন স্কুলের সমৃদ্ধি কামনা করে শেষ করছি

মতামত দিন
সাম্প্রতিক মন্তব্য
সিকদার মোঃ শাজিদুর জাহান
৩১ মে, ২০২০ ০৮:৫৬ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিং ও লাইকসহ শুভকামনা ও অভিনন্দন।


লাইলী আক্তার
২৮ মে, ২০২০ ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ

লাইক এবং পূর্ণ রেটিংসহ শুভকামনা ও ধন্যবাদ।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৯ মে, ২০২০ ০২:২০ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


Ashis kumar dash
২৮ মে, ২০২০ ০৯:২৩ পূর্বাহ্ণ

শুভেচ্ছা -অভিনন্দন ও শুভকামনা। আমার কনটেন্টগুলো দেখে রেটিং, লাইক ও কমেন্ট দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৯ মে, ২০২০ ০২:২০ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মোহাম্মদ আতাউর রহমান সিদ্দিকী
২৭ মে, ২০২০ ০৭:১৮ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ অসংখ্য ধন্যবাদ এবং সেই সাথে আপনার সাফল্য কামনা করছি। এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত উদ্ভাবনের গল্প দেখে লাইক, রেটিং ও মতামত দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইলো।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৯ মে, ২০২০ ০২:১৯ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


কমলকান্ত রায় তাং
২৭ মে, ২০২০ ০৬:০২ অপরাহ্ণ

ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, বাতায়নের সাথে থাকুন। লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ অসংখ্য শুভকামনা । আমার কনটেন্টগুলো দেখে আপনার মূল্যবান মতামত ও রেটিং প্রদান করার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। আপনার সুস্থতা কামনা করছি ।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৯ মে, ২০২০ ০২:১৯ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মেফতাহুন নাহার
২৬ মে, ২০২০ ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ

শুভেচ্ছা -অভিনন্দন ও শুভকামনা। আমার কনটেন্টগুলো দেখে রেটিং, লাইক ও কমেন্ট দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৬ মে, ২০২০ ০৫:৪৪ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


সুজিত দেব
২৫ মে, ২০২০ ১১:৫৮ অপরাহ্ণ

ঈদ মোবারক। পূর্ণরেটিংসহ শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কন্টেন্ট দেখে আপনার সুচিন্তিত মতামত, পরামর্শ ও রেটিং দেওয়ার বিনীত অনুরোধ করছি।ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৬ মে, ২০২০ ০৫:৪৪ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


এ.সুকুর আলী খাঁন
২৫ মে, ২০২০ ০৪:১০ অপরাহ্ণ

ঈদ মোবারক। পূর্ণরেটিংসহ শুভকামনা রইলো। আমার আপলোডকৃত কন্টেন্ট দেখে আপনার সুচিন্তিত মতামত, পরামর্শ ও রেটিং দেওয়ার বিনীত অনুরোধ করছি। ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন , নিজেকে নিরাপদে রাখুন ।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৬ মে, ২০২০ ০৫:৪৪ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মুহাম্মদ লোকমান
২৪ মে, ২০২০ ০৪:১৪ অপরাহ্ণ

ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, বাতায়নের সাথে থাকুন। লাইক ও পূর্ণ রেটিংসহ অসংখ্য শুভকামনা ।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৬ মে, ২০২০ ০৫:৪৩ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


অচিন্ত্য কুমার মন্ডল
২৪ মে, ২০২০ ১০:১০ পূর্বাহ্ণ

পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা রইল । শ্রেনী উপযোগী ও মান সম্মত কন্টেন্ট তৈরি করার জন্য ধন্যবাদ। আমার এ সপ্তাহের কন্টেন্ট দেখার ও রেটিং সহ মতামত প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি। সেই সাথে আসুন আমরা আমাদের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শিক্ষার প্রতি খেয়াল রাখি যেন তারা সঠিক এবং সহজ উপায়ে শিক্ষতে পারে। ধন্যবাদ। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নিরাপদে থাকুন। https://www.teachers.gov.bd/content/details/571697


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৪ মে, ২০২০ ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মো: নজরুল ইসলাম
২৪ মে, ২০২০ ০৭:০০ পূর্বাহ্ণ

সুন্দর ও শ্রেনী উপযোগী কন্টেন্ট আপলোডের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ । আমার কনটেন্ট দেখে আপনার মূল্যবান মতামত প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৪ মে, ২০২০ ১০:৩৪ পূর্বাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মো:সাইফুল ইসলাম
২৩ মে, ২০২০ ১১:৪০ অপরাহ্ণ

আপনার বিশ্লেষণ অত্যন্ত চমৎকার । অনলাইন স্কুল কার্যক্রম কে তৃণমূল পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে সম্প্রসারনের জন্য উক্ত কার্যক্রমে মাঠ পর্যায়ের শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তাগনকে সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন ।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৪ মে, ২০২০ ০৪:০১ পূর্বাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


দুলাল কুমার মন্ডল
২৩ মে, ২০২০ ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ অসংখ্য ধন্যবাদ এবং সেই সাথে আপনার সাফল্য কামনা করছি। এ পাক্ষিকে আমার আপলোডকৃত উদ্ভাবনের গল্প দেখে লাইক, রেটিং ও মতামত দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ রইলো।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৩ মে, ২০২০ ১১:২৪ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মোঃ মেরাজুল ইসলাম
২৩ মে, ২০২০ ০৮:০৮ অপরাহ্ণ

সুন্দর ও শ্রেণি উপযোগী কনটেন্ট আপলোড করার জন্য লাইক ও পূর্ণ রেটিং সহ শুভকামনা ও অভিনন্দন । ভালো থাকুন , সুস্থ থাকুন , নিজেকে নিরাপদে রাখুন ।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৩ মে, ২০২০ ০৯:৪৫ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মোছাঃ লাকী আখতার পারভীন
২৩ মে, ২০২০ ০৬:৪৬ অপরাহ্ণ

লাইক ও পূর্ন রেটিংসহ শুভকামনা রইল। আমার এ সপ্তাহের কন্টেন্ট দেখে লাইক কমেন্টস ও রেটিং দেয়ার জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৩ মে, ২০২০ ০৭:২৬ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মোঃ আবুল হোসেন
২৩ মে, ২০২০ ০৬:০৮ অপরাহ্ণ

রেটিং সহ শুভকামনা রইল।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৩ মে, ২০২০ ০৭:২৬ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


সন্তোষ কুমার বর্মা
২৩ মে, ২০২০ ০৫:৪৬ অপরাহ্ণ

পূর্ণ রেটিং সহ ধন্যবাদ আমার কনটেন্ট দেখার অনুরোধ রইলো।


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৩ মে, ২০২০ ০৭:২৬ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই


মোঃ শহিদুল ইসলাম
২৩ মে, ২০২০ ০৫:৪১ অপরাহ্ণ

ঘরে থাকুন, ভাল থাকুন,পরিবারের সাথে থাকুন । পূর্ণ রেটিংসহ আপনার জন্য শুভ কামনা । আমার ছবিতে ক্লিক করে আমার কনটেন্টগুলো দেখে লাইক কমেন্ট এবং রেটিংসহ মুল্যবান মতামত প্রদানের জন্য বিনীত অনুরোধ রইল।আমার আইডি shahidulgdm@gmail.com


মমতাজ রোখসানা আখতার
২৩ মে, ২০২০ ০৭:২৭ অপরাহ্ণ

আমরা এভাবেই শিক্ষক বাতায়নে সক্রিয় থেকে একে অপরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেব। ধন্যবাদ সকলকেই